অভ্যাস পরিবর্তনের ১০টি উপায়!!

অভ্যাস

“If it doesn’t challenge you, it doesn’t change you. If you do not change,
you remain mundanely boring and you bow yourself and
everyone else like watching you so..”
– Susmita Sen

পরিবর্তন এর কথা শুনলেই আমাদের ক্যামন যেন জর চলে আসে। সামনে না বললেও ভিতরে ভিতরে পচে মরতে হয়। তবে কিছু অভ্যাস থাকে যা আমরা অনেকেই পরিবর্তন করতে চাই, কিন্তু হয়ে ওঠে না। অভ্যাস আসলে কি? অভ্যাস হল আমাদের নিয়মিত করা কিছু কর্মকাণ্ড যা নিয়ে আমরা ভাবি না। এবার এসব অভ্যাস এর পরিবর্তন বলতে শুধু খারাপ অভ্যাসগুলোকে ঝেড়ে ফেলা নয়, বরং শত খারাপের মাঝে কিছু ভালো স্বভাব অভ্যাসে পরিণত করা – যেমন যেখানে সেখানে কিছু না ফেলা, বই পড়া, নিয়মিত ব্যায়াম করা কিংবা হাঁটতে যাওয়া……এছাড়াও আরও অনেক কিছু যা আপনার জীবনকে সুন্দর করে গড়ে তুলতে সাহায্য করবে। তাই দেখে নিন অভ্যাস পরিবর্তনের ১০টি উপায়ঃ

১। লেগে থাকুনঃ
অভ্যাস পরিবর্তনের প্রথম শর্ত হল লেগে থাকা। এর মানে এই না যে আপনাকে ২৪ঘন্টা সেই কাজটাই করতে হবে। এর মানে কষ্ট করে হলেও চেষ্টা চালিয়ে যাওয়া। ধরুন আপনি চাইছেন প্রতিদিন ২ ঘন্টা করে হাঁটবেন। কিন্তু হাঁটতে গিয়ে আপনি হাপিয়ে ওঠেন এবং আধা ঘণ্টা পর বাড়ি চলে আসেন। তাহলে জীবনেও আপনার অভ্যাস পরিবর্তন হবে না। বরং একদিন আপনি আর হাঁটতে যাবেন না। আর সেটাই হবে আপনার অভ্যাস। তাই হাঁটতে গেলে আপনার উচিত হবে ২ঘন্টা হেঁটে তারপর ফেরা। মনে রাখবেন আমাদের মন আমাদের সব সময় বিভ্রান্তিতে ফেলে। হাঁটার সময় আপনার মনে হতে পারে আপনার খারাপ (অসুস্থ থাকলে ভিন্ন কথা) লাগছে কিংবা আজকে না পারলেও কালকে থেকে পারবেন। এটা সম্পূর্ণ ভুল তা আপনি নিজেও জানেন। তাই অভ্যাস পরিবর্তনের খাতিরে লেগে থাকুন। শুধু হাঁটার জন্য নয় অন্য যেকোনো কাজের ক্ষেত্রেও বিষয়টি প্রযোজ্য।

Continue reading

স্বপ্ন এবং বাস্তবতা!!

আমরা যখন স্বপ্ন দেখতে বসি তখন তাতে কোনো শর্ত থাকে না। থাকে শুধুই কল্পনা। নিজেকে কিংবা কাউকে নিয়ে আঁকা সুন্দর সাজানো ক্যানভাস। তাতে কোনো কষ্ট থাকে না, থাকে না দুশ্চিন্তার কালো রেখা।

সেই সুন্দর স্বপ্নে আমরা বসবাস করি। কল্পনার ছোঁয়াকে আরও দৃঢ় করি। সেখানে বসবাস করা প্রতিটি মানুষ আমাদের পছন্দের। কেউ কেউ আবার খুবই কাছের। তাদের সাথে আমাদের সম্পর্কগুলোও খুবই মধুর। তাদের মাঝে কোনো হিংসা থাকে না, থাকে না ছেড়ে যাবার তীক্ষ্ণ বেদনা। তিল তিল করে লালন করা সেই স্বপ্নের কোনো নাম থাকে না। থাকে না অভাবে ঝলসে যাওয়া কোনো নষ্ট চরিত্র। সেখানে সবাই নিশ্চিন্ত। তাদের মাঝে কোনো ভয় নেই। স্বপ্নে তারা খেলে, গান গায়, কবিতা পড়ে। তাদের কোনো প্রতিবাদ নেই। তারা মুক্ত আকাশে শ্বাস নেয়।

আমরা যখন বাস্তবতায় আসি তখন তাতে নানা রকম শর্ত থাকে। থাকে না শুধুই কল্পনা। নিজেকে কিংবা কাউকে নিয়ে আঁকা কুৎসিত অগোছালো ক্যানভাস। তাতে কষ্ট থাকে , থাকে দুশ্চিন্তার কালো রেখা। সেই বাস্তবতায় আমরা বসবাস করি। কল্পনার ছোঁয়াকে বিদায় দেই। সেখানে বসবাস করা প্রতিটি মানুষ আমাদের দূরের। কেউ কেউ আবার খুবই অপছন্দের। তাদের সাথে আমাদের সম্পর্কগুলোও মধুর না। তাদের মাঝে শুধু হিংসা থাকে, থাকে ছেড়ে যাবার তীক্ষ্ণ বেদনা। থাকে অভাবে ঝলসে যাওয়া একটি নষ্ট চরিত্র। সেখানে সবাই অনিশ্চিত। তাদের মাঝে থাকে ভয়। তাদের মাঝে সৃষ্টির মূল সুর নেই। তাদের আছে প্রতিবাদ। মুক্ত আকাশে তাদের দম আটকে যায়। তারা থাকে ঘোরের মধ্যে।

তবুও আমরা স্বপ্ন এবং বাস্তবতার মাঝেই চলি। কেননা আকাশ ভরা তারার সীমানা পেরোনোর ভয় নেই। তবে তাহার পানে চেয়ে দিবাস্বপ্ন দেখা ভয়ের। দিবাস্বপ্ন না স্বপ্ন!! হাজারো ভিড়ের মাঝে রঙ্গিন চাদরের সাদা হয়ে ওঠার ধূসর স্বপ্ন।।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য !

প্রাচ্যের অক্সফোর্ড নামে খ্যাঁত আমাদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে একটু খোঁজাখুঁজি করেও কিছু তথ্য যা দেশের বিভিন্ন প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় আসার যোগ্য তা খুঁজে পেলাম না। তাই নিজে থেকেই কালেক্ট করে সেগুলো এখানে তুলে ধরার চেষ্টা করবো। ভার্সিটি ভর্তি পরীক্ষা, ব্যাংক এর পরীক্ষা, বিসিএস সহ যেকোনো পরীক্ষার প্রিপারেশনের জন্যেই এগুলো জেনে রাখা ভালো। 🙂

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয় কবে? – ১৯২১ সালের ১ জুলাই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্যে কোন কমিশন গঠন করা হয়েছিলো? – নাথান কমিশন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দিবস কবে? – ১ জুলাই

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শোক সিবস – ১৫ অক্টোবর

কালো দিবস – ২৩ আগস্ট Continue reading

নতুনদের জন্য লিনাক্স নিয়ে কিছু কথা

লিনাক্স! এক অজানা ( যদিও বর্তমানে অনেক বেশী পরিচিতর মধ্যেও পড়ে 😛 ) অদ্ভুত এক নাম! বেশ কিছু মানুষের কাছে এটা একটা ভীতিকর জিনিস, আবার কিছু মানুষের মানুষের কৌতুহলের উদ্রেক ঘটায় এই জিনিস।
বাংলাদেশে বর্তমানে কম্পিউটার ব্যবহারকারী অনেক রয়েছে, কিন্তু তাদের বেশীরভাগই অনেকটা অজ্ঞ; আমি নিজেও বিজ্ঞ নই। লিনাক্স ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাংলাদেশে তুলনামূলকভাবে বেশ বেড়েছে কিন্তু এখনো অনেক মানুষ আছে যারা জানেনই না উইন্ডোজ ছাড়া কম্পিউটার চালানো যায়। তাদের মধ্যে যারা একটু টিপে টিপে মনে করেন বেশী অভিজ্ঞতা অর্জন করে ফেলেছেন তারা কারো কম্পিউটারে লিনাক্স দেখলে জিজ্ঞেস করে বসেন এটা কোন উইন্ডোজ(!) :roll: । আবার অনেকের হালকা পাতলা ধারণা রয়েছে তারা মনে করেন লিনাক্স ক্ষতিকর কোনো কিছু অথবা এটা সার্ভার বা উঁচু স্তরের প্রোগ্রামিং অথবা হ্যাকিংয়ের জন্য ব্যবহৃত হয়!
আবার কিছু মানুষ অনেক কৌতুহল নিয়ে ঘাঁটাঘাঁটি করে কিন্তু তেমন সুযোগ না থাকায় ভালোভাবে জানা হয় না। এই লেখায় লিনাক্স নিয়ে সচরাচর কিছু প্রশ্নের উত্তর দেয়া হবে।

Tux

লিনাক্সের অফিসিয়াল মাসকট (টাক্স)

Continue reading

লিঙ্ক থ্রি ব্রডব্যান্ড – রিভিউ

 

লিঙ্ক থ্রি বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার। কোয়ালিটি সার্ভিস দেয়ার মাধ্যমে তারা বেশ ভালোই নামডাক কামিয়েছে। দেশের প্রায় ৫০ টি ব্যাংককে সার্ভিস দিচ্ছে তারা ! তো সে হিসেবে বোঝাই যায় তারা কতটা ভালো সার্ভিস দিচ্ছে। 🙂

যখন প্রথম লিঙ্ক থ্রির ব্রডব্যান্ড কানেকশন নিতে চেয়েছিলাম, তখন অনেক খুঁজেও একটা রিভিউ পাইনি লিঙ্ক থ্রির। তাই সেই সময়েই ভেবেছিলাম যে লিঙ্ক থ্রি কে নিয়ে ছোটখাট একটা রিভিউ লেখে ফেলা যায় নিজের অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে। এলাকা ভেদে হয়তো সার্ভিসে কিছু তারতম্য থাকতে পারে। আমি পল্টন এলাকায় ব্যবহার করেছি, তাই আমি যেভাবে যেই সার্ভিস পেয়েছি ঠিক সেভাবেই তুলে ধরার চেষ্টা করবো। Continue reading