10

কিওয়ার্ড রিসার্চ

সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন এর এক অবিচ্ছেদ্দ অংশ কিওয়ার্ড রিসার্চ। কিওয়ার্ড রিসার্চের শুরুটা হতে পারে নিজেকে একজন সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজার না ভেবে সাধারণ ব্যবহারকারী ভেবে। আপনি যদি কোন নির্দিষ্ট কিওয়ার্ডের উপর কোন কিছু খোঁজ করতেন তাহলে যেসব সম্ভাব্য শব্দ বা বাক্য লিখে আপনি খোঁজ করতেন সেখান থেকেই কিওয়ার্ড রিসার্চের সূচনা।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কি?

কিওয়ার্ড রিসার্চ

বেসিক সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন কোর্স  আগের পোস্টগুলোতে একজন আলু বিক্রেতা আর তার ওয়েবসাইট ছিল, তিনি আলু বিক্রির জন্যে ওয়েবসাইট খুলেছেন। তিনি চাচ্ছেন আলু এবং এর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ অন্যান্য শব্দগুলো লিখে কেউ সার্চ ইঞ্জিনে খোঁজ করলে যেন তার ওয়েবসাইট প্রথম সারিতে দেখায়। এজন্যে তিনি আলুর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ অন্যান্য শব্দগুলো খুজে বের করার জন্যে খানিকটা গবেষণা করলেন। তিনি দেখলেন আলু লিখে খোঁজ করার পাশাপাশি মানুষ গোল আলু, মিষ্টি আলু, লাল আলু, ছোট আলু, বড় আলু, আলুর পুষ্টিগুণ, কম দামে আলু, আলুর উপকারিতা ইত্যাদি নানা বিষয়ে খোঁজ করে।

অর্থাৎ যারা আলু লিখে খোঁজ করে তারা যেমন আলু কেনার মতো মন মানসিকতা রাখে তেমনই আলুর সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ অন্যান্য কিওয়ার্ডগুলো লিখে যারা খোঁজ করে তারাও আলু কেনার মন মানসিকতা রাখে এবং যারা “কম দামে আলু” লিখে খোঁজ করে তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সম্ভাবনা থাকে আলু কেনার, কারণ তারা কম দামে আলু লিখে খোঁজ করছেন।

এখন তিনি তার ওয়েবসাইটকে সবগুলো কিওয়ার্ডের উপর ভালো কন্টেন্ট দিলে ভালো মানের ওয়েবসাইট তৈরী সম্ভব হবে আর সার্চ ইঞ্জিনগুলোও ধরে নিবে যে ওয়েবসাইটটি সম্পুর্ণ আলু নিয়ে তাই আর দশটা সাধারণ ওয়েবসাইটের তুলনায় এই ওয়েবসাইট ভালো হবে। তাই তাকে অন্যদের থেকে প্রাধাণ্য দেয়ার সমূহ সম্ভাবনা আছে। আর ওয়েবসাইট যতো বেশি কিওয়ার্ডের জন্যে প্রথম সারিতে আসতে পারবে ততোই লাভ।

আলু ব্যবসায়ী তার ওয়েবসাইটকে সমৃদ্ধ করার জন্যে আলু্র সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ অন্যান্য কিওয়ার্ডগুলো খুজে বের করার জন্যে যে ছোটখাটো রিসার্চ করলো সেটাকেই বলা যেতে পারে কিওয়ার্ড রিসার্চ। অর্থাৎ আলু ব্যবসায়ী এখন যা করেছে তাই কিওয়ার্ড রিসার্চ।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কেন জরুরী?

কিওয়ার্ড রিসার্চ ছাড়া সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন চিন্তা করা নিতান্তই বোকামি, এছাড়া আর কিছু না। বেশিরভাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারিই তার নূন্যতম দরকারেও ইন্টারনেটে খোঁজ করতে পছন্দ করে। ধরা যাক, কেউ একজন আলু সম্বন্ধে জানতে চাচ্ছেন এবং কোথায় ভালো আলু পাওয়া যায় সে সম্বন্ধে খোঁজ খবর নিতে চাচ্ছেন, আর এদিক দিয়ে আলু ব্যবসায়ী যদি কিওয়ার্ড রিসার্চ না করে তার ওয়েবসাইটে, কন্টেন্টে যথাযথভাবে কিওয়ার্ডে ব্যবহার করে না থাকে তাহলে কি কোন সম্ভাবনা আছে সার্চ ইঞ্জিনে আলু লিখে খোঁজ করলে তার ওয়েবসাইট পাওয়ার? মোটেও নেই।

আমি আপনি একটা সাধারণ ওয়েবসাইট এর ধরণ দেখলেই হয়তো বলতে পারবো যে এটা কিসের ওয়েবসাইট, কিন্তু সার্চ ইঞ্জিন বট এক্ষেত্রে অন্ধ। সে আমাদের মতো দেখে না, সে দেখে ছত্রভঙ্গ কিছু কোড। আপনার সামনে দশজন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর লোককে দেয়া হলো, সবাই প্রায় একই রকম কাপড় পড়া, আপনাকে যদি বলা হয় কার নাম কি তাহলে কি আপনি বলতে পারবেন? প্রশ্নই উঠেনা। কিন্তু যদি এমন হয় প্রত্যেকটা লোকের কাছে নামের ব্যাজ লাগানো আছে? তাহলে আপনি সে ব্যাজ দেখে কাউকে না চিনেও সবার নাম বলে দিতে পারবেন।

এক্ষেত্রে নামের ব্যাজ থাকায় আপনার নাম বলে দেয়া সহজ হয়েছে। এমনি কিওয়ার্ড রিসার্চের মাধ্যমে সঠিক কিওয়ার্ড বাছাই করতে পারা যায়। সঠিক কিওয়ার্ডগুলো বাছাই করে সেগুলো কন্টেন্টে যথাযথ ভাবে প্রয়োগ করলে সে কিওয়ার্ডগুলোই সার্চ ইঞ্জিন বটের কাছে নামের ব্যাজের মতো কাজ করবে। এতে করে সহজেই সার্চ ইঞ্জিন বুঝতে পারবে সেই পেইজটিতে মূলত কি নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। তাই সে ওই একই বিষয় লিখে সার্চ ইঞ্জিনে খোঁজ করা হলে পেইজটি যথাযথ স্থানে দেখাতে পারবে।

  • কিওয়ার্ড রিসার্চের ফলে কোন কিওয়ার্ড কতটা ফলপ্রসু হওয়ার সভাবনা আছে তা জানা যায়
  • লং টেইল কিওয়ার্ডগুলো খুঁজে বের করা যায়
  • রিলেটেড কিওয়ার্ডগুলো খুঁজে বের করা যায়
  • কোন কিওয়ার্ড কোন সময়ে কতটা জনপ্রিয় ছিলো সেটা জানা যায়
  • কিওয়ার্ডটি যেকোনো দেশে স্থানীয়ভাবে কতবার খোঁজ করা হয় তা জানা যায়
  • ইন্টারন্যাশনাল ভাবে কতবার খোঁজ করা হয় তা জানা যায়

কিওয়ার্ড রিসার্চ না করলে কি হতে পারে?

যদি কেউ কিওয়ার্ড রিসার্চ না করে তাহলে সম্পূর্ণ সাইটের অপটিমাইজ করার চেষ্টা সম্পূর্ণই বৃথা বলে ধরে নেয়া যেতে পারে। যেকোনো কিছুর জন্যে খানিকটা জানাশোনা থাকা জরুরী। কোন কোন কিওয়ার্ড লিখে মানুষ সার্চ করে, কোন কিওয়ার্ডের সাথে কোন কিওয়ার্ড সামঞ্জস্য আছে, কোন কিওয়ার্ডে র‍্যাঙ্ক করা সহজ হবে, কোনটাতে র‍্যাঙ্ক করা কঠিন হবে ইত্যাদি আরও নানা বিষয় জানাশোনা থাকলে সে অনুযায়ী ওয়েবসাইটকে তৈরি করে নিলে সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন পরিপূর্ণতা পাওয়ার সম্ভাবনা আছে, নয়তো সব কিছু ভেস্তে যেতে পারে।

কিওয়ার্ড রিসার্চ কি খুব কঠিন?

ব্যাপারটা নির্ভর করে মেইন কিওয়ার্ড, টুলস আর ব্যবহারকারীর উপর। টুলস আর ব্যবহারকারীর ভূমিকা এক্ষেত্রে অনেক বেশি। কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্যে বেশ অনেকগুলো টুলস আছে (পরে আলোচনা করা হবে এ নিয়ে)। সবগুলোর কাজ একই হলেও একেকটা থেকে একেকটার কিছুটা হলেও পার্থক্য আছে। তবে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হয় গুগল এডওয়ার্ডস কিওয়ার্ড টুল। একটা কিওয়ার্ড টুল দিয়েই যে সব কাজ সঠিকভাবে করা সম্ভব এমনটা না, এক্ষেত্রে বেশ কিছু টুলস এর সহায়তা নিতে হবে।

টাকা খরচ করে কিছু প্রিমিয়াম কিওয়ার্ড রিসার্চ টুলস ও ব্যবহার করা যায়, সেক্ষেত্রে যেহেতু গাটের পয়সা খরচ হচ্ছে তাই স্বাভাবিকভাবেই বেশ অনেক ইউনিক ফিচার সেগুলোতে পাওয়া যাবে, যা অনেক কঠিন কাজকেও সহজ করে দিবে।

কিওয়ার্ড রিসার্চের জন্যে ব্যবহারকারীকেও যথেষ্ট কামেল হতে হবে। একদিনেই কিওয়ার্ড রিসার্চ টুলসগুলো নিয়ে কয়েক ক্লিকেই করে ফেলা সম্ভব না। এজন্যে যথেষ্ট সময় দিতে হবে, নিজে থেকে এনালাইসিস করতে হবে, সমমনা অন্যান্য ওয়েবসাইটগুলোকে একটূ ঘাটতে হবে। সব মিলিয়ে বলা যায় সঠিক কিওয়ার্ড রিসার্চ -এর জন্যে যথেষ্ট খাটাখাটনির প্রয়োজন আছে। তাই বলে একে খুব কঠিনও বলা যাবেনা। অভ্যস্ত হয়ে গেলে তেমন কঠিন লাগে না।

আমি টাকা খরচ করতে চাইনা

হতে পারে আপনি টাকা খরচ করে প্রিমিয়াম কিওয়ার্ড রিসার্চ টুলসগুলো ব্যবহার করবেন না, এর মানে এই না যে আপনি কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে পারবেন না। আপনি অবশ্যই কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে পারবেন আর বেশ ভালোভাবেই করতে পারবেন। প্রিমিয়াম টুলসগুলো যে কাজ আপনাকে সহজেই করার সুযোগ দিতো সেগুলো কষ্ট করে নিজে হাতে করতে হবে।

প্রিমিয়াম যে কিওয়ার্ড রিসার্চ টুলসগুলো আছে বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে সবগুলোই যথেষ্ট ব্যয়সাপেক্ষ, তাই আমাদের ফ্রি টুলসগুলো দিয়েই পোষাতে হবে। আর ফ্রি টুলসগুলো দিয়েও ভালো কিওয়ার্ড রিসার্চ করা সম্ভব। প্রয়োজন শুধু সময়, ইচ্ছা আর খানিকটা উর্বর মাথা।

আমি আগে কিওয়ার্ড রিসার্চ করিনি, আমি কি পারবো?

এমনটা হওয়া খুবই স্বাভাবিক যে আপনি ইতোপূর্বে কিওয়ার্ড রিসার্চ করেন নি। এর কারণ হতে পারে আপনার বিষয়টা সম্পর্কে পরিষ্কার ধারনা ছিলো না নয়তো আপনি জানতেন না। কারণ যাই হোক, ইচ্ছা থাকলে আপনিও পারবেন কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে এবং তা বেশ সফলতার সাথেই। এই পর্বে সাধারণ বিষয়গুলোকে তুলে ধরা হচ্ছে। পরের পর্বে কিওয়ার্ড রিসার্চ এর জন্যে ফ্রি টুলসগুলো ব্যবহারও তুলে ধরা হবে। কিওয়ার্ড রিসার্চের উপর আমাদের লেখাগুলো পড়ার পরে আপনি হয়তো পারবেন সফল ভাবে কিওয়ার্ড রিসার্চ করতে।

মনে সাহস রাখুন। এটা কোন বড়সড় কোম্পানীর চাকরী না যে আপনাকে পূর্ব অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। ইচ্ছা, বুদ্ধি আর সময় থাকলে এটাও সম্ভব।আপনার মনে বিশ্বাস রাখতে হবে যে আপনি পারবেন, আপনাকে ভাবতে হবে আপনি যা করছেন তা আপনার চেয়ে ভালো কেউ করতে পারবেনা, আত্ববিশ্বাস যত মজবুত থাকবে আপনি কাজে ততো বেশি মনোযোগী থাকবেন, উৎসাহ পাবেন আর সর্বোপরি কাজও ভালো হবে।

রিলেটেড কিওয়ার্ড কি?

ধরা যাক কেউ সাইকেল বিষয়ক ওয়েবসাইট চালাচ্ছে। তার মূল বিষয় সাইকেল হলেও হাতের গ্লভস, সাইকেল হেলমেট, চাকা, চেইন, ফর্ক, ফ্রন্ট লাইট, সিট, লক ইত্যাদি বিষয়গুলোও সামঞ্জস্যপূর্ণ। তাই যে সাইকেল বিষয়ক ওয়েবসাইট চালাচ্ছে তাকে এইসব রিলেটেড কিওয়ার্ডও প্রয়োগ করতে হবে ভালো মানের সাইট বানানোর জন্যে।

লং টেইল কিওয়ার্ড কি?

“Cycling Helmets”এটা একটা সাধারণ কিওয়ার্ড, কিন্তু “Gub K70 White Cycling Helmet” এটা একটা লং টেইল কিওয়ার্ড। লং টেইল কিওয়ার্ডের সুবিধা হচ্ছে এতে সার্চ ভলিউম কম থাকলেও র‍্যাঙ্ক করা তুলনামূলক সহজ। “Cycling Helmets” কিওয়ার্ডটার জন্যে ভালো র‍্যাঙ্ক করতে হলে অনেক লম্বা সময় যাবৎ কাঠ খড় পোড়াতে হবে, বছর খানেকও লাগতে পারে, কারণ শুধু গুগলের কাছেই এই কিওয়ার্ড ব্যবহার করছে এমন ওয়েবসাইট আছে ৩০ লাখ ৭০ হাজার ! অর্থাৎ এতোগুলো ওয়েবসাইট এই কিওয়ার্ডে র‍্যাঙ্ক করার চেষ্টা করে থাকতে পারে। অন্যদিকে “Gub K70 White Cycling Helmet” এই কিওয়ার্ডের জন্যে প্রতিযোগিতা করতে ৩লাখ ১৪ হাজার ওয়েবসাইট। অর্থাৎ সাইক্লিং হেলমেটস এর চেয়ে গাব কে৭০ সাইক্লিং হেলমেটস এ র‍্যাঙ্ক করা তুলনামূলক সহজ, তাই লং টেইল কিওয়ার্ড নিয়ে কাজ করা আর অপটিমাইজ করলে সহজেই র‍্যাঙ্ক করে সুফল পাওয়া সম্ভব।

ফ্রি কিওয়ার্ড রিসার্চ টুলস

গুগল এডওয়ার্ডস কিওয়ার্ড টুল – এটি সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগলের একটা ওয়েব অ্যাপলিকেশন কিওয়ার্ড রিসার্চ করার জন্যে। কোন নির্দিষ্ট কিওয়ার্ড নিয়ে সার্চ করলে সেটা লোকালভাবে কতগুল সার্চ করা হয়েছে, সারা পৃথিবীতে সম্ভাব্য মোট সার্চের সংখ্যা, কম্পিটিশন কেমন হবে, মার্কেট ভ্যালু কতো তা জানা যাবে সহজেই। রিলেটেড কিওয়ার্ডগুলোও আপনাকে দেখাবে এই কিওয়ার্ড টুলস।

গুগল ট্রেন্ডস – কোন নির্দিষ্ট কিওয়ার্ডে গুগলে কোন সময় কতবার সার্চ করা হয়েছে তার একটা গ্রাফ দেখা যাবে এখানে, রিলেটেড কিওয়ার্ড দেখা যাবে। পৃথিবীর কোথায় বেশি কোথায় কম সার্চ করা হয়েছে তা দেখা যাবে। এছাড়াও আরো কিছু সুবিধা আছে এতে।

শেষ কথাঃ

আমার বোঝানোর ধরণ আর সবার থেকে হয়তো আলাদা। অসামঞ্জস্য উদাহরণ দিয়ে থাকি সবসময়। তবে আমি বিশ্বাস করি, যেকোনো কিছুই সাদামাটাভাবে বোঝালে যতটা না মনোযোগী হয়ে কেউ বুঝে, আজব উদাহরণ দিলে তার চেয়েও বেশি মনোযোগী হয়ে বুঝে। আর এক্ষেত্রে মনে রাখার আর ভালোভাবে বুঝতে পারার হারও বেশি।

আমরা আমাদের লেখা অনুযায়ী যথাযথ কমেন্ট পাচ্ছিনা, ফলে বোঝা সম্ভব হচ্ছেনা যে আমাদের লেখা কেমন লাগছে। অনুরোধ করবো নিয়মিত কমেন্ট করে আপনাদের মতামত আমাদের জানতে দেয়ার জন্যে। 🙂

ইমেইলে নতুন লেখাগুলো পেতে সাইন আপ করুন 🙂

আরিফুল ইসলাম পলাশ
 

বর্তমানে ঢাকার এক স্বনামধন্য কলেজে অধ্যয়নরত। লেখালেখির ঝোক ছোটবেলা থেকেই। ব্লগিং এ হাতেখড়ি সেই সপ্তম শ্রেণীতে। তখন ঠিকমতো টাইপ করতে পারতাম না, খুব কষ্ট হতো লিখতে। ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি। এখন কিবোর্ড চলে বুলেটের মতো। তাই ইচ্ছা আছে বাংলায় তথ্যসমৃদ্ধ ইন্টারনেট দেখার। সেই ভেবেই পিপীলিকাতে লেখা। :) ফেসবুকে আমি

চুলের সমস্যায় ভুগছেন? জেনে নিন মাথায় নতুন চুল গজানোর উপায়