চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা

চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা

 

চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা

চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা।
তোমার জোছনা মিছে
আমি সে কথা বলিনা।
যে তোমায় রাঙ্গায়
সে সূর্য, আমি না।
কি করে তোমায় উপহাস করি বল,
তাও তো তুমি ঘোর আঁধারে জ্বলো।

তোমার মিথ্যে আলো দেখে,
হৃদয়ের সত্য মায়ায় পড়ে,
অজস্র পতঙ্গ ছুটে চলে
তোমার দিকে, তোমায় ভালোবেসে।
তাদের ভালোবাসা শিউলির মতো
সারারাত সাজে,
ডানা ঝাপটে ঝাপটে।

অবশেষে প্রভাতের দেশে আশে সূর্য,
শিউলির ব্যার্থ প্রেমিক, নিষ্ঠুর তোমার স্বামী!
শিউলির প্রভাত মৃত্যু দেখে;
অশকের কলিঙ্গ জয়ের ক্রোধ চোখে মেখে,
তোমার প্রেমিকদের হত্যা করে সে।
ঝলশিয়ে দেয় তাদের দেহ, ডানা, আত্মা,
হৃদয়, অন্তর, চোখ, ভালোবাসা।

তাদের ঝলসিত নিথর দেহ পড়ে থাকে
তোমার ৫০০ কোটি বয়সি মা’র বুকে।
এ কোন পুরনো ঘটনা নয়,
প্রতিদিন ঘোটে চলে, শুনে পেওনা ভয়।

চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা
তুমি কলঙ্কিনী;
আমি সে কথা বলিনা।
সে তোমার দোষ নয়,
বিধাতার উদারতার সংশয়,
সংশয় বলে যদি ভুল হয়,
তবে বলতে হয়,
কিছু প্রান থাকুক বেঁচে,
তোমার মা’র বুকে,
হয়তো তাই সে চায়।
তোমার কলঙ্কিনী মুখের হাসি দেখে
প্রতিদিন সহস্র প্রান ঝরে।
তবে ভাবো নিস্কলঙ্ক তুমি হোলে
কি হতো ধরণীর প্রান্তরে?

– মঈন রহমান

ইমেইলে নতুন লেখাগুলো পেতে সাইন আপ করুন 🙂

মঈন রহমান
 

আমি মঈন, বর্তমানে নটর ডেম কলেজে দ্বাদশ শ্রেণীতে অধ্যয়নরত…

চুলের সমস্যায় ভুগছেন? জেনে নিন মাথায় নতুন চুল গজানোর উপায়