লিঙ্ক থ্রি ব্রডব্যান্ড – রিভিউ

 

লিঙ্ক থ্রি বাংলাদেশের শীর্ষস্থানীয় ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার। কোয়ালিটি সার্ভিস দেয়ার মাধ্যমে তারা বেশ ভালোই নামডাক কামিয়েছে। দেশের প্রায় ৫০ টি ব্যাংককে সার্ভিস দিচ্ছে তারা ! তো সে হিসেবে বোঝাই যায় তারা কতটা ভালো সার্ভিস দিচ্ছে। 🙂

যখন প্রথম লিঙ্ক থ্রির ব্রডব্যান্ড কানেকশন নিতে চেয়েছিলাম, তখন অনেক খুঁজেও একটা রিভিউ পাইনি লিঙ্ক থ্রির। তাই সেই সময়েই ভেবেছিলাম যে লিঙ্ক থ্রি কে নিয়ে ছোটখাট একটা রিভিউ লেখে ফেলা যায় নিজের অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে। এলাকা ভেদে হয়তো সার্ভিসে কিছু তারতম্য থাকতে পারে। আমি পল্টন এলাকায় ব্যবহার করেছি, তাই আমি যেভাবে যেই সার্ভিস পেয়েছি ঠিক সেভাবেই তুলে ধরার চেষ্টা করবো।

লিঙ্ক থ্রির ভালো দিক

  • যোগাযোগ করার পর খুব একটা বিলম্ব না করেই তারা আমাকে কানেকশন দিয়েছিল। যেটা লোকাল আইএসপি কয়েকদিন লাগিয়ে দেয়…
  • স্পিড আমি বেশিরভাগ সময়েই কনস্ট্যান্ট পেয়েছি। আমি লিঙ্ক থ্রির ১এমবি নাইট ডাবলার প্যাকেজ ব্যবহার করতাম। আসলে যতটুকু স্পিড পাওয়ার কথা আমি ঠিক সেটাই পেতাম।
  • লোডশেডিং হলেও আপনি পাওয়ার ব্যাকআপ পাবেন। তার মানে আপনি যদি বিদ্যুৎ না থাকা অবস্থায় ইউপিএস, আইপিএস বা জেনারেটরে আপনার ইন্টারনেট কানেকশন ব্যবহার করতে চান, তাহলে সেটা নির্দ্বিধায় পাবেন ! 🙂
  • কাস্টমার সার্ভিস যথেষ্ট ভালো এদের। যেকোনো সমস্যায় যোগাযোগ করলে এরা খুব দ্রুত সেতার সমাধান দেয়ার চেষ্টা করতো।
  • বিডিআইএক্স কানেক্টেড হওয়ায় লোকাল টরেন্ট সাইটগুলো থেকে ডাউনলোড করতে পারতাম। তবে বিডি আই এক্স স্পিড হবে আপনার মূল স্পিডের দুইগুণ। যদিও তখন বিডিআইএক্স কানেক্টেড সাইট ব্যবহার করে যত ডাউনলোড স্পিড পেতাম এখন ৩এমবি নাইট ডাবলার ব্যবহার করে তার থেকে বেশি স্পিড পাই 😉
  • লোকাল আইএসপিতে যেমন মাসে অন্তত দুই তিনবার ইন্টারনেট লাইন কাঁটা পরা স্বাভাবিক সেটা লিঙ্ক থ্রির ক্ষেত্রে নেই। দীর্ঘদিন ব্যবহার করার পরে কোনদিন এমন কোন সমস্যায় পড়তে হয়নি। যদি কখনো মেইন্টেইনেন্সের কাজ থাকতো তাহলে আগে থেকেই মেইল করে জানিয়ে দিতো যে কবে হবে, কখন হবে, কতক্ষণ লাগতে পারে। যে জিনিসটা সবচেয়ে ভালো লাগতো !

আপডেট – বর্তমানে নাকি লিঙ্ক থ্রি গুগল ক্যাশ সার্ভার সুবিধা দিচ্ছে, যার ফলে যেকোনো লিঙ্ক থ্রি ইউজার বাফার ছাড়াই ইউটিউব ভিডিও দেখতে পারবে। 🙂 

লিঙ্ক থ্রির খারাপ দিক

  • যেখানে আর দশটা আইএসপি বিডিআইএক্স স্পিড সেরাম ভাবে দিচ্ছে সেখানে একজন লিঙ্ক থ্রি ব্যবহারকারী পাবেন তার মূল ডাউনলোড স্পিডের দ্বিগুণ !
  • পিং টাইম অনেক বেশি। যার ফলে ভালো স্পিডের ইন্টারনেট কানেকশন থাকার পরেও আপনাকে বেশ ভুগতে হবে।
  • মাঝখানে একটা আজব সমস্যা দেখা দিয়েছিল লিঙ্ক থ্রির। সমস্যাটা শুধু আমি না, অনেকেই ফেস করেছিলো। লিঙ্ক থ্রির গ্রুপেও এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা হয়েছিলো। মোবাইলে ০ ফেইসবুক ব্যবহার করলে যেমন কোন ছবি লোড হয়না, শুধু টেক্সট দেখা যায় ঠিক তেমন হয়ে গিয়েছিল। কোন ছবিই দেখা যাচ্ছিল না ! দীর্ঘ দিনেও এই সমস্যার সমাধান হয়নি। অনেক সময় নিয়েছে এটার সমধান করতে। এখনো কোথাও এমন সমস্যা হয় কিনা বলতে পারিনা।
  • ইন্টারনেট বিল দিতে আপনার কিছু দেরী হলেই তারা আপনার লাইন কেটে দিবে আপনাকে জানানো ছাড়াই !

লিঙ্ক থ্রির প্যাকেজ

লিঙ্ক থ্রির প্যাকেজ

আপাত দৃষ্টিতে লিঙ্ক থ্রির প্যাকেজ মূল্য একটু বেশি মনে হলেও যেহেতু তাদের সার্ভিসের মান ভালো তাই ভালো সার্ভিসের জন্যে এতটুকু খরচ করা যেতেই পারে। 😉

তো এই ছিল আমার অভিজ্ঞতায় লিঙ্ক থ্রির রিভিউ। বর্তমানে হয়তো সার্ভিস এর থেকে অনেক ভালো আবার অনেক খারাপও হতে পারে। তবে এতটুকু বলতে পারি লিঙ্ক থ্রি ছাড়ার আগ পর্যন্ত আমি খুব শান্তিতে ছিলাম। বর্তমানে আফতাব আইটি ব্যবহার করছি। সেটা নিয়েও শীঘ্রই একটা রিভিউ লেখে ফেলার চেষ্টা করবো।

আপনি যদি লিঙ্ক থ্রি ব্যবহারকারী হয়ে থাকেন তাহলে আপনি আর কি ভালো দিক বা খারাপ দিক উপলব্ধি করেছেন? আমাদেরকে জানান কমেন্টে !

ইমেইলে নতুন লেখাগুলো পেতে সাইন আপ করুন 🙂

আরিফুল ইসলাম পলাশ
 

বর্তমানে ঢাকার এক স্বনামধন্য কলেজে অধ্যয়নরত। লেখালেখির ঝোক ছোটবেলা থেকেই। ব্লগিং এ হাতেখড়ি সেই সপ্তম শ্রেণীতে। তখন ঠিকমতো টাইপ করতে পারতাম না, খুব কষ্ট হতো লিখতে। ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি। এখন কিবোর্ড চলে বুলেটের মতো। তাই ইচ্ছা আছে বাংলায় তথ্যসমৃদ্ধ ইন্টারনেট দেখার। সেই ভেবেই পিপীলিকাতে লেখা। :) ফেসবুকে আমি

চুলের সমস্যায় ভুগছেন? জেনে নিন মাথায় নতুন চুল গজানোর উপায়