1

ইউটরেন্ট এর বিকল্প হতে পারে যে টরেন্ট ক্লায়েন্টগুলো…

ইউটরেন্ট, যতগুলো টরেন্ট ক্লায়েন্ট সফটওয়্যার আছে তার মধ্যে সর্বাধিক জনপ্রিয় টরেন্ট ক্লায়েন্ট। ২০০৫ সালে অবমুক্ত হওয়ার পর থেকেই জনপ্রিয়তার তুঙ্গে উঠতে থাকে ইউটরেন্ট। সেই ২০০৫ থেকেই এখন অবধি বিনামূল্যেই পাওয়া যাচ্ছে ইউটরেন্ট, অবশ্য টাকা দিয়ে এর প্লাস ভার্শনটি কিনে নিলে সাধারণ সুবিধাগুলোর পাশাপাশি বাড়তি কিছু সুযোগ-সুবিধা পাওয়া যাবে। উইন্ডোজ, লিনাক্স, ম্যাক এই তিন প্ল্যাটফর্মের জন্যেই পাওয়া যায় ইউটরেন্ট।

জনপ্রিয়তায় এগিয়ে থাকলেও সেরা টরেন্ট ক্লায়েন্ট জগতে একাই রাজত্ব করছেনা ইউটরেন্ট। পাশাপাশি আরও বেশ কিছু টরেন্ট ক্লায়েন্ট প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। আর সে লক্ষে প্রতিনিয়ত নিত্য-নতুন সুযোগ-সুবিধা যোগ করে টেক্কা দেয়ার চেষ্টা করছে। এই পোস্টে এমনই কিছু টরেন্ট ক্লায়েন্ট এর কথা বলা হবে নিঃসন্দেহে যারা ইউটরেন্ট এর বিকল্প হতে পারে।

ভুজ

ভুজ

ইতোপূর্বে অ্যাজুরাস/অ্যাজুরিয়াস নামে প্রচলিত ছিল। এর একটি ফ্রি ভার্শন এবং অপরটি পেইড। সাধারণভাবে একটি টরেন্ট ক্লায়েন্ট এর যেসব গুণাবলি থাকে তার প্রায় সবগুলো থাকলেও এর মধ্যে লোকাল পিয়ার ডিসকভারি করার সুবিধা দেয়া নেই। তা সত্ত্বেও এটি ইউটরেন্টের সবচেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী। এর ইন্টারফেস তুলনামূলক-ভাবে বেশ আকর্ষণীয় এবং বেশ ফাস্টার টরেন্ট ক্লায়েন্ট এটি। কিছু সুবিধা কম থাকা সত্ত্বেও অন্য টরেন্ট ক্লায়েন্টগুলো থেকে ভুজকে প্রথমে রাখার পেছনের কারণ এর জনপ্রিয়তা এবং জনপ্রিয় সব অপারেটিং সিস্টেমের জন্যে সাপোর্ট ! সব অপারেটিং সিস্টেমের জন্যেই ভুজ এর আলাদা ভার্শন রয়েছে।

ভুজ ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন 

টিক্সাটি

টিক্সাটি

সি++ এ করা এ টরেন্ট ক্লায়েন্টটি অবমুক্ত হয় এখন (২৩ এপ্রিল ২০১৩) থেকে প্রায় তিন বছর আগে ২০০৯ এর ২৭ তারিখে। ইউটরেন্টের তুলনায় এর ব্যবহারকারী অনেক কম হলেও ইউটরেন্টের ভালো বিকল্প হতে পারে টিক্সাটি। একটি আধুনিক টরেন্ট ক্লায়েন্টের মধ্যে যেসকল গুণাবলি দরকার তার প্রায় সবগুলোই এর মধ্যে বর্তমান।

টিক্সাটির চেহারা তেমন একটা শোভনীয় না হলেও এর এই গুণটির জন্যেই এর ব্যবহারকারীরা একে পছন্দ করে। কোন রকম এডভার্টাইজমেন্ট চোখে পড়বেনা। তাছাড়া অযাচিত ফিচারগুলো পুরোপুরি বাদ দিয়ে একদম সাদামাটা-ভাবে তৈরি করা হয়েছে টিক্সাটি। আর একারণে তুলনামূলক-ভাবে অনেক ফাস্ট এটি। আরসি৪ কানেকশন এনক্রিপশন করা হয়েছে ভালো সিকিউরিটির জন্যে।

যারা একদম সাদামাটা কিন্তু দারুণ ফাস্ট টরেন্ট ক্লায়েন্ট চাচ্ছেন তাদের জন্যে টিক্সাটি হতে পারে ইউটরেন্ট এর ভালো বিকল্প।

টিক্সাটি ডাউনলোড 

বিটকমেট

বিটকমেট

টিক্সাটির মতো এটিও সি++ এ করা। আগস্ট ৬, ২০০৩ এ এটি অবমুক্ত হয়। বিটকমেট এর সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফিচার হচ্ছে এটি একই সাথে টরেন্ট এর পাশাপাশি সাধারণ ফাইলগুলোও ডাউনলোড করতে সক্ষম। অর্থাৎ সাধারণ ডাউনলোড ম্যানেজার হিসেবেও বিটকমেটকে ব্যবহার করা যাবে। বিটকমেট এ কিছু ফিচার কম থাকার পরেও এটি টিক্সাটির চেয়ে বেশি জনপ্রিয়, বিশেষ করে এশিয়ার মানুষদের কাছে। এর জনপ্রিয়তার পিছে একটা কারণ হচ্ছে এটি সর্বমোট ৫২টি ভাষায় পাওয়া যায়। তবে বিটকমেট কেবলমাত্র উইন্ডোজ ব্যবহারকারীরাই ব্যবহার করতে পারবেন। লিনাক্স, ম্যাকওস এর জন্যে বিটকমেট নেই।

বিটকমেট ডাউনলোড

বিটটরেন্ট

বিটটরেন্ট

সি++ এবং পাইথন এ করা বিটটরেন্ট অবমুক্ত হয় ২০০১ সালে। এর ফ্রি এবং পেইড উভয় ধরণের ভার্শনই আছে। ফ্রি ভার্সনটি ওপেন সোর্স। জনপ্রিয়তার দিক থেকে টিক্সাটি এবং বিটকমেট থেকে বিটটরেন্ট ক্লায়েন্টটি এগিয়ে থাকলেও ফাস্টার টরেন্ট ক্লায়েন্টগুলোকে এর থেকে বেশি প্রায়োরিটি দেয়া হয়েছে।আধুনিক টরেন্ট ক্লায়েন্ট এর সবগুণ আছে এর মধ্যে। যেসকল গুণাবলি উপরের ক্লায়েন্টগুলোর অনেকগুলোর মধ্যেই নেই সেগুলোও পাওয়া যাবে বিটটরেন্ট এর মধ্যে। তবুও মানুষ এর চেয়ে অন্যান্য টরেন্ট ক্লায়েন্টগুলোকেই মূল্যায়ন করে বেশি।

বিটটরেন্ট ডাউনলোড 

ইমেইলে নতুন লেখাগুলো পেতে সাইন আপ করুন 🙂

আরিফুল ইসলাম পলাশ
 

বর্তমানে ঢাকার এক স্বনামধন্য কলেজে অধ্যয়নরত। লেখালেখির ঝোক ছোটবেলা থেকেই। ব্লগিং এ হাতেখড়ি সেই সপ্তম শ্রেণীতে। তখন ঠিকমতো টাইপ করতে পারতাম না, খুব কষ্ট হতো লিখতে। ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি। এখন কিবোর্ড চলে বুলেটের মতো। তাই ইচ্ছা আছে বাংলায় তথ্যসমৃদ্ধ ইন্টারনেট দেখার। সেই ভেবেই পিপীলিকাতে লেখা। :) ফেসবুকে আমি