2

আজ থেকে গুরুত্বপূর্ণ কোন কিছুই আর কখনো ভুলবেন না !

অনেক আগের কথা, আমার পরীক্ষা চলছিল। কোন একদিন হরতালের কারণে আমার পরীক্ষা পিছালো। নিজের অলসতার কারণেই হোক আর যে কারণেই হোক পরবর্তিত তারিখ কোথাও লিখে রাখিনি আমি। স্বাভাবিকভাবেই পরীক্ষার দিন এলো এবং পরীক্ষা চললো। আর ওদিকে আমি গায়ে হাওয়া লাগিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছি ! রাস্তায় দেখা এক বন্ধুর সাথে, সে পরীক্ষা শেষে বাড়ি ফিরছে কেবল। রাস্তায় ওকে এভাবে দেখে আমারতো “টিনের চালে কাক, আমিতো অবাক” টাইপ অবস্থা। কোনভাবে নিজেকে সামলে নিয়ে জিজ্ঞেস করলাম কি ব্যাপার ! এই সময়ে স্কুল ড্রেসে? কই থেকে ফিরলি। প্রশ্ন শুনে ছেলে পুরাই অবাক, বললো ইংরেজি পরীক্ষা ছিল, সেটা দিয়ে আসলাম ! আমি আর কোন কথা না বলে এক দৌড়ে বাসায়। কোনভাবে স্কুলড্রেস গায়ে জড়িয়ে স্কুলে দৌড়। যেন তেন দৌড় না রীতিমত উসাইন বোল্ট টাইপ দৌড়। আমি যখন পৌছলাম তখন দেখি পরীক্ষা শেষ ! !

হুড়মুড় করে টিচার্স রুপে ঢুকলাম আমি। খোজ নিয়ে জানলাম কোন টিচার আমাদের ক্ল্যাসরুমে পরীক্ষার গার্ড ছিল, তার কাছে গেলাম। তাকে সব খুলে বললাম, উনি টিচার্স রুমে থাকা অন্যান্য শিক্ষকদের পরামর্শ নিয়ে আমার পরীক্ষা নিতে রাজি হলো, তবে শর্ত দুইটা। পরীক্ষা দিতে হবে টিচার্সরুমে টিচারদের সাথেই, আর সময় দেয়া হবে মাত্র ৪০ মিনিট ! পড়ালেখার পাশাপাশি পারিপার্শিক অনেক কিছুতেই স্কুলে জড়িত থাকার সুবাদে সবাই চিনতো আমাকে। তাই সে যাত্রায় রক্ষা! নইলে কি অবস্থা হতো আমার ! ক্ল্যাসের ফার্স্ট বয় যদি ইংরেজিতে ফেইল করে তাহলে কি আর মান সম্মান থাকে?

গুরত্বপূর্ণ কাজ আর ভুলবেন না

আমার মতো কিংবা আমার চেয়েও অনেক বড় বিড়ম্বনার শিকার হয়তো অনেকেই। গুরুত্বপূর্ণ কাজ ভুলে গিয়ে রীতিমত নাকানি চুবানি খেয়েছেন অনেকেই ! কিন্তু সেইদিন ফুরিয়েছে। আপনার কাছে যদি থাকে কোন স্মার্টফোন কিংবা কম্পিউটার তাহলে আপনি নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো ভুলে যাওয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখতে পারবেন। দরকার পড়বে শুধু এনি ডু নামের একটি ফ্রি অ্যাপ্লিকেশন।

এনি ডু ডাউনলোড –

#অ্যান্ড্র্য়েড ডিভাইস

#আইওস 

#গুগল ক্রোম 

#সরাসরি ইন্টারনেটে ব্যবহার করতে 

আপনার ডিভাইসে এনি ডু ইন্সটল করার পরে আপনি আপনার গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলোর তালিকা তৈরি করে নিতে পারেন এবং নির্দিষ্ট সময় পরে তার জন্যে অ্যালার্ম সেট করে দিতে পারেন। আর এনি ডু এর মাধ্যমে শুধু প্রতিদিনের কাজ না, পরবর্তীতে করবেন এমন কাজগুলোও সেট করে রাখতে পারেন। এনি ডু ব্যবহার করা খুবই সহজ। এতে বিল্ট ইন টিউটোরিয়ালও দেয়া আছে, যা আপনাকে সম্পূর্ণভাবে এর ব্যবহারবিধি শিখিয়ে দিবে। 🙂

এই ভিডিওটি একবার দেখে নিতে পারেন –

আর যাদের স্মার্টফোন নেই তাঁরা চাইলে মোবাইলের রিমাইন্ডার অপশানে দরকারি বিষয়গুলোতে রিমাইন্ডার দিয়ে রাখতে পারেন। তাছাড়া টু ডু লিস্ট হিসেবে মোবাইলের মেমো অপশনটিও ব্যবহার করতে পারেন।

আর এগুলোর কোনটিই যদি সম্ভব না হয়, তাহলে ছোট্ট একটা প্যাড সবসময়ই নিজের সঙ্গে রাখুন এবং গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো সময়সহ টুকে রাখুন। এতে করেও আপনি গুরুত্বপূর্ণ কোন কিছু ভুলে যাওয়া থেকে নিজেকে বিরত রাখতে পারবেন। তবে প্যাড ব্যবহারের চেয়ে মোবাইলের অ্যাপসটাই ব্যবহার সুবিধাজনক কারণ হয়তো আপনি কখনো প্যাড সাথে নিতে ভুলে যেতে পারেন কিন্তু মোবাইল নিতে ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনাটা নিতান্তই কম । 😉

আপনি গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলো মনে রাখতে কি করেন?

এছাড়াও আরো অনেক অ্যাপলিকেশন রয়েছে কর্মক্ষমতা বাড়ানোর জন্যে। অনেকে হয়তো অন্যগুলোও ব্যবহার করে থাকতে পারেন, সেক্ষেত্রে আপনি কোনটি ব্যবহার করেন এবং কেন করেন তা শেয়ার করতে ভুলবেন না।

ইমেইলে নতুন লেখাগুলো পেতে সাইন আপ করুন 🙂

আরিফুল ইসলাম পলাশ
 

বর্তমানে ঢাকার এক স্বনামধন্য কলেজে অধ্যয়নরত। লেখালেখির ঝোক ছোটবেলা থেকেই। ব্লগিং এ হাতেখড়ি সেই সপ্তম শ্রেণীতে। তখন ঠিকমতো টাইপ করতে পারতাম না, খুব কষ্ট হতো লিখতে। ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি। এখন কিবোর্ড চলে বুলেটের মতো। তাই ইচ্ছা আছে বাংলায় তথ্যসমৃদ্ধ ইন্টারনেট দেখার। সেই ভেবেই পিপীলিকাতে লেখা। :) ফেসবুকে আমি