ফেসবুক আইডি হ্যাক হলে কিভাবে উদ্ধার করবেন?

যোগাযোগ বা ট্রেন্ড যাই বলুন না কেন ফেসবুক এখন আমাদের নিত্য দিনের সঙ্গী।লক্ষনীয় যে, ফেসবুক শুধুমাত্র আজ কাল সামাজিক যোগাযোগের অন্যতম একটি মাধ্যম নয় বরং  আরো নানাবিধ ব্যক্তিগত ও ব্যবসায়িক কাজেও ব্যবহার করা হয়। একদিন মাঝরাতে কেউ একজন ফোন দিয়ে আপনাকে ঘুম থেকে উঠিয়ে জিজ্ঞেস করল ফেসবুক কি সব পোষ্ট করতেছে ! হুরমুর করে ঘুম থেকে উঠে দেখলেন ফেসবুকে লগ ইন করতে পারবেন না। চোখ রগরাতে রাগরাতে বুঝলেন ফেসবুক আইডিটি হ্যাক হয়ে গিয়েছে। পাঁচ-সাত বছর আগে হলে হয়ত  বন্ধুরদের বলতেন আইডি হ্যাক হয়ে গেছে রিপোর্ট করে ব্লক করে দেন। তখন হয়ত জানতেন না হ্যাক হওয়া আইডি উদ্ধার করা যায়।

দেখা গেছে কোন একটি স্প্যামি লিঙ্ক কিংবা এপ্সের কবলে পড়ে আপনি আইডি হারিয়েছেন । অথবা কোন ভাবে আপনার সিকিউরিটি ব্যবস্থা দূর্বল থাকায় ইমেইল হ্যাক হয়ে কিংবা সরাসরি হ্যাক হয়ে ফেসবুক একাউন্টটি হ্যাক হয়ে গেল। এবং হ্যাকার আপনার ব্যবহৃত পাশওয়ার্ড টিও পরিবর্তন করে ফেললো। এখন আপনি  কি করবেন বলে ভাবছেন? অবশ্যই ফেসবুক আইডিটি উদ্ধার করার চেষ্টা করবেন।আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে আপনার সামনে দুটি উপায় খোলা আছে। একটি হল অ্যাকাউন্ট টি পুনরুদ্ধার করা অন্যটি হল অ্যাকাউন্ট টি চিরতরে ডিলেট করে দেওয়া।

প্রথমেই এই লিঙ্কে যান http://www.facebook.com/hacked । লিঙ্কে প্রবেশে করলে এমন একটি পেজ আসবে, এখান থেকে “My account is compromised” এই বাটনে ক্লিক করুন।

হ্যাক হওয়া একাউন্টটির তথ্য চাইবে এখানে। এখানে দু’টি অপশন চাবে। ব্যবহৃত ইমেইল বা মোবাইল নাম্বার।  উল্লেখ করা  দু’টি অপশনের যেকোন একটির ইনফরমেশন দিন। দিয়ে ক্লিক করুন সার্চ এ ক্লিক করুন। আপনার দেওয়া প্রদত্ত তথ্য সঠিক হলে আপনার একাউন্টটি এখানে দেখাবে

এখানে আমি আমার মেইল দিয়ে এক্সেস করার চেষ্টা করেছি। তাই আমার মেইল অপশন দেখাচ্ছে। সরাসরি মেইলের মাধ্যমে উদ্ধারের তথ্য চাচ্ছে বা  আমার দেওয়া মেইলে লগিন কোড পাঠানোর কথা বলছেন। আমি মেইলে কোড অপশন দিয়ে কনটিনিউ করায়  আমার মেইলে ফেসবুক ছয় সংখ্যার একটি কোড পাঠিয়েছে। উক্ত কোডটি নীচের পেজে দিলে ফেসবুক আমাকে নতুন পাসওয়ার্ড সেট করার অপশন দিবে। নতুন পাসওয়ার্ড দিয়ে আপনি আপনার ফেসবুক একাউন্টটি উদ্ধার করতে পারবেন।

ফেসবুক আইডিতে ব্যবহার করা ই-মেইলের পাসওয়ার্ড ও ফেসবুক আইডির পাসওয়ার্ড ভিন্ন রাখা উচিৎ। কারণ হ্যাকাররা সাধারণত ফেসবুক আইডি হ্যাক করার পর ই-মেইল এড্রেস বদলে ফেলে। আর ই-মেইল এড্রেস বদলে ফেলতে পারলে হ্যাকিং হওয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ফিরে পাওয়া কঠিন।

কোনভাবে যদি ফেসবুক একাউন্ট ফিরে না পাওয়া যায় সে ক্ষেত্রে চিরতরে বন্ধ করার চেষ্টা করতে হবে। এ ক্ষেত্রে নীচের প্রক্রিয়া অনুসরন করতে হবে

প্রোফাইলের উপরে ডানকোনায় ম্যাসেজের পাশে তিনটি ফোটা যুক্ত স্থানে ক্লিক করলে বেশ কয়েকটি অপশন আসবে। রিপোর্টে ক্লিক করতে হবে। এর পরে রিপোর্টে ক্লিক করতে হবে।

এবার রিকভার বা ক্লোজ দিজ একাউন্টে ক্লিক করুন।

সব শেষে ক্লোজ দিস একাউন্টে ক্লিক করুন। বেশ কিছু রিপোর্ট পড়লে ফেসবুক রিভিউ করে হয়ত একাউন্ট ক্লোজ করে দিতে পারে।

আরো একটি পদ্ধতি হল কোনভাবেই যদি আপনার ফেসবুক একাউন্ট উদ্ধার করতে না পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনার জাতীয় পরিচয়পত্র, নতুন একটি ইমেইল এবং পূর্বের ইমেল ও পূর্বের ফেসবুকের পাসওয়ারড ফেসবুককে মেইল করতে পারেন। ফেসবুক আপনার একাউন্ট রিভিউ করে হয়ত ফেরত দিতে পারে।

ফেসবুক আইডি উদ্ধারে আইনের সহযোগীতা নেওয়া

আপনার  ফেসবুক একাউন্ট হ্যাক হলে হ্যাকার আপনাকে সহজেই বিপদে ফেলতে পারে । এ কারনে হ্যাক হওয়া একাউন্টটি যদি কোনভাবেই উদ্ধার করা সম্ভব না হয়  তাহলে দেরি না করে অবশ্যই আইনের সহযোগিতা নেওয়া উচিত। অর্থাৎ পুলিশ এবং বিটিআরসিকে জানিয়ে রাখুন যেন পরবর্তীতে আপনার একাউন্ট ব্যবহার করে কেউ অপরাধমূলক কোন কর্মকান্ড করলে আপনি  যাতে বেচে যেতে পারেন।

আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে আপনার সামনে দুটি উপায় রয়েছে।  অ্যাকাউন্ট টি পুনরুদ্ধার করা ও অ্যাকাউন্ট টি চিরতরে ডিলেট বা সরিয়ে ফেলা।

দু’টি ক্ষেত্রেই তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয় আপনাকে সহযোগিতা করবে । তারা  তিন দিনের মধ্যে হ্যাক হওয়া অ্যাকাউন্টটি উদ্ধার করে দেবে অথবা আপনার অনুমতি সাপেক্ষে ডিলেট করে দেবে ।

ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হয়ে গেলে প্রথমেই করনীয় কাজ হল নিকটস্থ পুলিশ ষ্টেশনে গিয়ে এ ব্যাপারে জিডি করা । জিডি করার পূর্ব অভিজ্ঞতা না থাকলে থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা আপনাকে এ ব্যাপারে সাহায্য করার কথা । দায়িত্বরত পুলিশ কর্মকর্তা এর সামনে বসে আপনার সমস্যার কথা জানিয়ে একটা সাধারন ডায়েরি বা জিডি করবেন । জিডি করা শেষ হলে তিনি আপনাকে জিডির একটি কপি দেওয়া হবে । এই কপিটি  আপনার কাছে রেখে দিন।

জিডি করা শেষ হলে আপনার দ্বিতীয় কাজ হবে তথ্য ও যোগাযোগ মন্ত্রনালয় এর সাইবার নিরাপত্তা হটলাইনে ফোন করে তাদের সাথে যোগাযোগ করা । সাইবার নিরাপত্তা হটলাইনে নাম্বারঃ 01766678888। শুক্রবার ব্যতিত এ নাম্বারটি সকাল ১০ থেকে বিকাল ৫ পর্যন্ত খোলা থাকে। আপনার  ফেসবুক অ্যাকাউন্ট টি পুনরুদ্ধার করতে চান নাকি অ্যাকাউন্ট টি চিরতরে ডিলেট করে দিতে চান সে ব্যাপারে তারা আপনার কাছে জানতে চাইবে।  সব শোনা পরে তারা আপনাকে এই ইমেইল অ্যাড্রেসটি info@cybernirapotta.net প্রদান করবে।  এই ইমেইল অ্যাড্রেস এ আপনাকে  নিন্মোক্ত অ্যাটাচমেন্ট গুলো পাঠাতে বলা হবঃ

১) জিডির স্ক্যান করা কপি ।
২) ভোটার আইডি কার্ড এর রঙ্গিন স্ক্যান কপি ( রঙ্গিন হওয়া আবশ্যক ) ।
৩) হ্যাক হওয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এর লিংক।
৪) ইতিপূর্বে কখনও কোথাও ব্যবহার করা হয় নি এমন সম্পূর্ণ নতুন খোলা একটি ইমেইল আইডি ।

সব অ্যাটাচমেন্ট সহ ইমেইল পাঠিয়ে দেওয়ার পর চাইলে আপনি আবার হটলাইনে কল করে ইমেইল পেয়েছে কি না সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে পারেন । এরপর তিন দিনের ভেতর আপনার হ্যাক হয়ে যাওয়া অ্যাকাউন্ট উদ্ধার করে আপনাকে ফোন দিয়ে জানানো হবে ।

শেষ কথা

ফেসবুক অত্যন্ত জনপ্রিয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হলেও অনেকেই জানে না কী করে একাউন্টের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হয়। দুর্বল সিকিউরিটি সেটিংসের কারণে তাই ফেসবুক আইডি হ্যাকিং এর কবলে পড়তে পারে।ফেসবুক আইডি হ্যাক করে অনেক সময় হ্যাকার সেই প্রোফাইল থেকে অশালীন পোস্ট করা হয় অথবা ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা বন্ধুদের কাছে প্রতারণামূলক মেসেজ পাঠানো হয়। এসব ঘটনা সেই ব্যবহারকারীর অত্যন্ত বিব্রতকর অবস্থার কারন হতে পারে। তাই ফেসবুক আইডি হ্যাক হলে যত তারাতারি সম্ভব উদ্ধারের ব্যবস্থা নিতে হবে।

কি কি কারনে ফেসবুক আইডি হ্যাক হতে পারে তা এই আর্টিকেলের মাধ্যমে জেনে নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পারেন:  ফেসবুক আইডি হ্যাকঃ কিভাবে করে এবং নিরাপদে থাকার উপায় কি?

ইমেইলে নতুন লেখাগুলো পেতে সাইন আপ করুন 🙂

মানজুরুল হক