Archive

Category Archives for "সাহিত্য"

চর্যাপদঃ বাংলা সাহিত্যের প্রাচীন নিদর্শন

বাংলা সাতিহ্যের কথা আসলে আমাদের মনে আসে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর,কাজী নজরুল ইসলাম, শরৎচন্দ্র কিংবা হুমায়ূন আহমেদ প্রমুখ প্রথিতযশা সাহিত্যিকের নাম। তারা আমাদের কাছে বাংলা সাহিত্যকে নিয়ে গিয়েছেন অন্য রকম উচ্চতায়। কিন্ত তাদের উত্তরসূরী কারা ছিল বা তাদের বর্তমান সাহিত্যচর্যার বর্তমান ধারা কোথা থেকে এসেছে ? একটা ধারা তো এক দিনেই আসে না যুগ যুগ বা শতাব্দির […]

Continue reading
1

সাজাবো তোমায় প্রিয়া বধুর মতো করে

সাজাবো তোমায় প্রিয়া বধুর মতো করে   সাজাবো তোমায় প্রিয়া বধুর মতো করে আমার জন্যে নয়। তার তরে, অন্তরের ভালোবাসা পেরিয়ে, যে তোমায় করেছে জয়। সত্যি ভালোবাসা তুমি দুর্বোধ্য! যে তোমায় হৃদয় মাঝে রাখে, তাকে তুমি কচলিয়ে যাও ঝরা পলাশ ভেবে। খুঁজো তাকে দু’চোখ দিয়ে, সুন্দর আর সার্থকতার মাঝে।

Continue reading

চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা

চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা   চন্দ্রিমা, তুমি ধরণীর কন্যা। তোমার জোছনা মিছে আমি সে কথা বলিনা। যে তোমায় রাঙ্গায় সে সূর্য, আমি না। কি করে তোমায় উপহাস করি বল, তাও তো তুমি ঘোর আঁধারে জ্বলো।

Continue reading
1

হাজার বছর শেষে স্বাধীনতা

হাজার বছর শেষে স্বাধীনতা   হাজার বছরের পরাধীনতা শেষে আবার এলে তুমি ফিরে প্রিয় স্বাধীনতা, তোমায় পাওয়ার তরে বাবা মরল আর্য্যদের হাতে। তোমায় পাবে বলে মা’র দেহ ছিন্ন হলো মোঘলদের বারুদ তোপে। তোমায় দেখবে বলে দাদাভাই পড়লো ফাঁসির মালা,

Continue reading
1

গোপদ্য

গোপদ্য   কমলা রঙের বঙ্কিম চাঁদ ডুবলো মানিকের পদ্মায় কলিমদ্দির দফা হলো রফা এসে আবু জাফরের কাঠগড়ায়। হৈমন্তীর প্রেমে রবির মতো জ্বললো ঠাকুর, বিলাসীর সাপে দংশিলো হৃদয় শরৎ বাবুর। ওয়ালিউল্লাহর উঠানে সমাপ্ত হলো একটি তুলশী গাছের কাহিনী। রক্তাক্ত প্রান্তরে নীরব দর্শক মুনীর চৌধুরী।

Continue reading

সময়ের অপেক্ষা

সব কিছুর একটা সময় আছে রিহাদ জানে। তবে আর কত দিন সেই সময়ের অপেক্ষা করতে হবে তা রিহাদের জানা নেই। একটু পরে বন্ধুদের সাথে হয়তো অনেকটা দূরেই যাবে, ফিরবে কবে তা না জানা নেই। একটা চিঠির উত্তর দেয়া খুব দরকার তবে সাদা কাগজ না পাঠানোই ভালো। তাই সেটিও রিহাদ রেখে দিয়েছে, সঠিক সময়ের অপেক্ষায়।। গাড়িটা […]

Continue reading
7

তবুও চলে, চলছে, চলে যাবে কোনো এক ভাবে…

আবির, ছোট বেলা থেকেই মেধাবী এক ছাত্র। অনেক ভদ্র ও ভালো মনের মানুষ হিসেবেও সে পরিচিত। তবে ছোটবেলা থেকেই তার বাবা-মার মাথায় তার ব্যাপারে একটা চিন্তা সবচেয়ে বেশী ঘুরতো, সেটা হচ্ছে আবিরের খাদ্যাভ্যাস। খাওয়া-দাওয়ায় একেবারেই মন ছিলো না তার। খাবার হিসেবে দিনভর চকোলেট, আইসক্রিম, চিপস্‌, বিস্কুট, বার্গার, পিজা; এ দিয়েই তার দিন পার হয়ে যেত […]

Continue reading
2

লাবণ্য

শখ করে নাম দিয়েছিলেন লাবণ্য। নামটা যে খুব প্রিয় তা না, নামটার প্রতি একটা মায়া আছে। প্রথম প্রেমে পড়ার মায়া। অনেক কষ্ট করে নামটা জানতে হয়েছিল। পরে যেদিন গোলাপ কেনা হল সেদিন হাত ধরা হয়নি, বলা হয়নি মনের কথা। সেদিন দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে সন্ধ্যে দেখা হয়েছে। চোখে এসেছিল সে অন্য কারো! সেদিন গোলাপটি সেখানেই পরে থাকে। […]

Continue reading
2

সংকেতের আগমন

সংকেত এর আগে কিছু শব্দ জুড়ে দিলে তার বেশ কিছু অর্থ দাঁড়ায়। যেমন – ‘শুভ-সংকেত’ অর্থাৎ ভালো কিছুর আগমন, আবার ‘বিপদ-সংকেত’ অর্থাৎ অশুভ শক্তির ছোঁয়া। তবে সংকেত যে কারো নাম হতে পারে তা বিমল স্যার এর জানা ছিল না। ছেলেটা নতুন এসেছে। বড়ই মায়াবি চেহারা, দেখলেই আদর করতে ইচ্ছা করে। তবে স্যার হিসেবে তার যে […]

Continue reading

চাঁদের দেশে

মাথাটা আউলে গেছে কিংবা পাগল হয়ে গেছে, এসব প্রতিদিনই শুনতে হয় অলকের। তবু তারার আলো আর ঐ নীল সীমানা দেখতে ওর বেশ লাগে। সবাই এসে মাথা দিতেই চলে যায় গভীর ঘুমের অচেনা রাজ্যে। অলক জেগে থাকে। ওর ধারণা একদিন ও ঐ চাঁদের দেশে পাড়ি জমাবে। চেনা এই মানুষগুলো ছেড়ে চলে যাবে বহুদূর। ভাবনাগুলোতে হারিয়ে গেলে […]

Continue reading

একা

বাড়িটা অদ্ভুত রকমের সুন্দর। কোলাহল থেকে দূরে গাছগাছালিতে ভরপুর। অনেক জায়গা নিয়ে থাকা এ বাড়িতে থাকতে শাহের এর ভালোই লাগছে। বয়স ত্রিশ এর কাছে হলেও পুরো বৃদ্ধের মতন ওর বাস। সারাদিন এ বাড়ির আশেপাশেই থাকে। তবু এখনও চিনে নিতে পারেনি। ঠিক কি কারণে এখানে পড়ে  থাকা তাও ঠিক ওর জানা নেই। সকালের রোদের ছোঁয়া আর […]

Continue reading

তবু তপু

চিলেকোঠার আড়ালে হাজারো স্বপ্নের ছায়া, কখনো নিভৃতে তার সাথেই দেখা। আবার নিজের হাতেই তাকে মেরে ফেলা। অপমৃত্যুর নামে সব ভুলে থাকা। এসব ভেবে কিছু হবে না তপু জানে। তবু অর্থহীন শব্দ নিয়ে নিজের মাঝে খেলা, একবার করে প্রতিনিয়ত নিজের সাথে প্রতারণা। সব ফেলে চলে জেতে ইচ্ছে করে, তবু জেতে পারে না। আজ মনটা খুব বেশি […]

Continue reading

অতঃপর বৃষ্টি

ছবিটা কিছুদিন হল দেয়ালে লাগানো। অনেক দিন ধরে আছে বলে তারা কিছু বলেনি। ছবির দিকে তাকিয়ে দিন কেটে যায়। জানালার পাশে খাট টা বেশ বড়। চাইলে দু’জন ঘুমানো যাবে দিব্যি। তার পাশেই একটা টেবিল, কত কিছু রাখা তাতে! সামনে পাশে একটা সোফাও রাখা। হঠাৎ ঘুম ভেঙ্গে গেলে অস্থির হয়ে উঠল বেলা। তার খুব খারাপ বোধ […]

Continue reading